আধুনিক ভালোবাসার গল্প

Share

একটি কঠিন ভালুবাসার কাহিনি…
রাজু আর মর্জিনা ফেসবুকে প্রায় প্রতিদিন
চ্যাট করত!রাজু আস্তে আস্তে মর্জিনার
প্রতি দুর্বল হতে থাকল!এবং একদিন এই
কথাটা মর্জিনাকে বলে দিল!কিন্তু
মর্জিনা ‘না’ করে দিল এবং রাজুর
সাথে চ্যাটিং বন্ধ করে দিল!
রাজু ভাই দুঃখে ঘাস খাইতে লাগিল!!!
(যারা প্রেম করিতে চায়,তারা ঘরু-ঘাস ই
খায়)!
তার কিছুদিন পর মর্জিনা রাজুকে খুব মিস
করিতে লাগিল!…
এবং বুঝে গেছে যে সে রাজুর প্রেমে নাকানি-
চুবানি খাইতেছে!
কিন্তু লজ্জায় মর্জিনাপু
কথাটি না বলতে পেরে রাজু সাবকে এক্ষান
পিকচার ট্যাগ করিয়ছেনঃ ‘আমিও
তোমাকে আমার কৈলজা দিয়া দরদ করি’
এইরাম টাইপের! বালুবাসা উতলাই
পরতেছে!!
আর এদিকে রাজু ভাই দুঃখে বিড়ি,সিগেরেট,মদ
,গাজা,বিয়ার,হুইস্কি খাইয়া,সব ট্যাকা-
টুকা ফুরাইয়া ‘০.ফেসবুক.কম’ চালাইতেছে!
যার কারনে সে মর্জিনাপুর ট্যাগ
করুইন্না পিকটা দেখতে পারে নাই!!! (হায়
হায়রে )!
আর
এদিকে মর্জিনা অপেক্ষা করতে করতে দিন,মাস
পার করে দিতেছে!তিনার
অপেক্ষা রাগে পরিনিত হৈয়া গেছে,তাই
তিনি কাইটা পরছেন!
কাহিনিটা শেষ হয়নাই,আরেকটু আছেঃ
একদিন রাজু ভাইয়ের আইডিটা জুকা মামায় লক
কৈরা দেয়!রাজু ভাই এক্সপার্ট থাকার
কারনে মেথডঃ ‘ফটো ভেরিফাই’ সিলেক্ট
করেন! এবং পিসিতে বৈসে চেষ্টা করে!
কিন্তু হায় হায়,এখানে মর্জিনাপুর সেই
পিকটা চলে আইছে মাগার রাজু ভাই
‘০.ফেসবুক.কম’ এর
কারনে বুঝতে পারছেনা পিকটা কে ট্যাগ
করেছে!!
একটার পর একটা সিলেক্ট করে যাচ্ছে বাট
হচ্ছেনা!এক পর্যায়ে সে মর্জিনার
আইডি সিলেক্ট করে এবং সফল হয়!! রাজু
চিন্তায় পৈরা গেল,ক্যামনে কি??!! ভূত
আইল নাকি?!!! তারপর
সে ট্যাগিং পিকগুলা খুইজা খুইজা দেখেঃ ৬মাস
আগে মর্জিনাপু তারে পিকটা ট্যাগ করিয়াছে!
তখন রাজু ভাই মর্জিনার
প্রোফাইলে গিয়ে দেখে মর্জিনার
রিলেশানশিপ স্ট্যাটাস ‘মিঙ্গেল’!
রাজু ভাই মর্জিনারে বলগ(!) দিয়া মাথায়
পা থুক্কু হাত দিয়া বৈসা পরছে!আর
বলছেঃ হায়রে জিপি,তুই
আসলে একটা হারামীর ফোন!!!